মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১১ এপ্রিল ২০১৮

লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের পিইসি সভা অনুষ্ঠিত


প্রকাশন তারিখ : 2018-04-11

গত ০৯/০৪/২০১৮ খ্রিস্টাব্দ লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির (পিইসি) সভা বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড)-এর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। পিইসির সভায় সভাপতিত্ব করেন বার্ডের সম্মানিত মহাপরিচালক ড. এম. মিজানুর রহমান। সভায় লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। সভায় উল্লেখ করা হয় যে, প্রকল্প এলাকায় ৬৮টি গ্রামের ১৯৩০০ পরিবারের তথ্যসহ ৬৮টি গ্রাম তথ্যবই প্রণয়ন করা হয়। এ পর্যন্ত ১১২ গ্রাম সংগঠন সৃজন করে ৩৮২৮ সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সুফলভোগীদের মাঝে ৫ কেজি করে মোট ৩০০০ কেজি ব্রি-ধান ৫০ (সুগন্ধি) ধান বীজ বিতরণ করা হয়। ধান বীজ উৎপাদনের উপর ১০টি ব্যাচে ৩০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। ৮৩৭ জন সুফলভোগীর মাঝে ২০৯৪৫টি ফাউমী এবং সোনালী জাতের মুরগির বাচ্চা বিতরণ করা হয়েছে। ৩০০ জন সুফলভোগীর মাঝে ৪০ কেজি করে মোট ১২০০০ কেজি আলু বীজ (এস্টারিক্স জাত) বিতরণ করা হয়েছে এবং ১০টি ব্যাচে সবজি বীজ উৎপাদনের উপর ৩০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। ৩০০ জন সুফলভোগীর মাঝে ৩০০টি মৌ-বাক্স (মৌমাছিসহ) বিতরণ করা হয়েছে এবং ৩০০ জনকে মৌমাছি পালন এবং মধু উৎপাদনের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। পিইসি সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ড. এ, কে, শরীফউল্লাহ, পরিচালক (কৃষি ও পরিবেশ), বার্ড, জনাব মোঃ মিজানুর রহমান, পরিচালক (প্রকল্প), ড. মোঃ শফিকুল ইসলাম, উপ-প্রকল্প পরিচালক, লালমাই-ময়নামতি প্রকল্প, জনাব গোলাম সরওয়ার, চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, সদর দক্ষিণ, কুমিল্লা, জনাব এ.টি.এম মিজানুর রহমান, চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, বুড়িচং, কুমিল্লা, ড. আনোয়ার হোসেন ভূঁঞা, সহকারী প্রকল্প পরিচালক, লালমাই-ময়নামতি প্রকল্প-সহ প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।             

 

প্রসঙ্গত: লালমাই-ময়নামতি পাহাড়ী এলাকার জনগণের আর্থিক দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে বর্তমান সরকারের মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী ও স্থানীয় এমপি আ হ ম মুস্তফা কামালের (লোটাস কামাল) পরামর্শ মোতাবেক বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড) কর্তৃক ‘সমন্বিত কৃষি কর্মকান্ডের মাধ্যমে কুমিল্লার লালমাই-ময়নামতি এলাকার জনগণের জীবন-জীবিকার মানোন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয় এবং ২০১৬ সালের ২১ নভেম্বর প্রকল্পটি অনুমোদন লাভের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু করা হয়।

 


Share with :

Share with :

Facebook Facebook