মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd ডিসেম্বর ২০১৮

বার্ডে রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজম বিকাশে কর্মশালা অনুষ্ঠিত


প্রকাশন তারিখ : 2018-12-03

বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড)-এর লালমাই অডিটরিয়ামে গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশে রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজম বিষয়ক কর্মশালা অদ্য ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান জনাব আখতারুজ জামান খান কবির। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, রুরাল ট্যুরিজম গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশে একটি সম্ভাবনাময় খাত। কুমিল্লা অঞ্চলে রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজম বিকশিত হলে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বার্ডের মহাপরিচালক ড. এম. মিজানুর রহমান। সভাপতির বক্তৃতায় বার্ডের মহাপরিচালক বলেন, গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও দারিদ্র্য বিমোচনে রুরাল ট্যুরিজম একটি মডেল হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত হবে। রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজমের ব্যাপক প্রচার ও প্রসার হলে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। কর্মশালায় গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশে রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজমের ভূমিকা নিয়ে নিবন্ধ উপস্থাপন করেন বার্ডের উপ-পরিচালক জনাব জোনায়েদ রহিম। কর্মশালায় বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড, কুমিল্লা জেলা প্রশাসন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর, বনবিভাগ, শিসউক, ব্লু ওয়াটার পার্ক, ডাইনো পার্ক, ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিবৃন্দ এবং বার্ডের জ্যেষ্ঠ অনুষদবর্গ উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজম বিকাশে বার্ড ও ডাইনো পার্কের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। এছাড়াও কর্মশালায় লালমাই পাহাড়, ত্রিপুরা পল্লী এবং দাউদকান্দির প্লাবন ভূমিতে রুরাল ও ইকো-ট্যুরিজম বিকাশের জন্য কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। কর্মশালা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন জনাব আবুল কালাম আজাদ, ভারপ্রাপ্ত পরিচালক, বার্ড এবং সহকারী কর্মশালা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন কাজী ফয়েজ আহমেদ, সহকারী পরিচালক, বার্ড।         


Share with :

Share with :

Facebook Facebook